দাগ
স্ট্রেচ মার্কস
ত্বকের বর্ণের অসামঞ্জস্যতা
বায়ো-অয়েল® বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় দাগ ও স্ট্রেচ মার্ক্স্ হ্রাসকারী পণ্য।
Bio-Oil home Bio-Oil home


ব্যবহার
দাগ
দাগ
দাগ ত্বকের আরোগ্য প্রক্রিয়ার একটি অংশ যা ক্ষতস্থানের অতিরিক্ত কোলাজেন উৎপাদনের ফলে সৃষ্টি হয়। পূর্ণতা পাওয়ার আগপর্যন্ত দাগ বহুবার বদলালেও এটি দীর্ঘস্থায়ী। বায়ো-অয়েল দাগের উপস্থিতি কমাতে সাহায্য করে, তবে পুরোপুরি অপসারণ করতে পারেনা।
বায়ো-অয়েল দাগের উপর বৃত্তাকার ভাবে ম্যাসেজ করতে হবে, প্রতিদিন দু'বার , কমপক্ষে তিনমাস পর্যন্ত। নতুন দাগের ক্ষেত্রে, ক্ষত পুরোপুরি ঠিক হলে বায়ো-অয়েল ব্যবহার করুন, এবং ফেঁটে যাওয়া ত্বকে ব্যাবহার থেকে বিরত থাকুন। ব্যক্তিবিশেষে ফলাফলের তারতম্য হতে পারে।
স্ট্রেচ মার্কস
স্ট্রেচ মার্কস
যখন শরীর আবৃত ত্বকের তুলনায় দ্রুত বৃদ্ধি পায়, তখন ত্বক ফেঁটে যায় এবং সাড়ার সময় ক্ষতচিহ্নের সৃষ্টি হয়। এই ক্ষতচিহ্নগুলোই ত্বকের উপর স্ট্রেচ মার্ক্স্ রূপে প্রকাশিত হয়।
স্ট্রেচ মার্ক্স্ তৈরির সম্ভাবনা ত্বকের ধরণ, বর্ণ, বয়স, খাদ্যাভাস এবং ত্বকের আর্দ্রতাভেদে ভিন্ন হতে পারে। স্ট্রেচ মার্ক্স্ হবার প্রবণতা সাধারণত গর্ভবতী মহিলা, বডি-বিল্ডার, বয়ঃসন্ধিকালীন শারীরিক বিকাশ ও দ্রুত ওজনবৃদ্ধির ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি থাকে।
স্ট্রেচ মার্ক্স্ সাধারণত দীর্ঘস্থায়ী হয়, যদিও বায়ো-অয়েল এর উপস্থিতি কমাতে সাহায্য করে, তবে পুরোপুরি অপসারণ করতে পারেনা।
বায়ো-অয়েল স্ট্রেচ মার্কসের উপর বৃত্তাকার ভাবে প্রয়োগ করতে হবে, প্রতিদিন দু'বার , কমপক্ষে তিনমাস পর্যন্ত। গর্ভাবস্থায় দ্বিতীয় ট্রাইমেস্টারের শুরু থেকে শরীরের যেসব স্থানে স্ট্রেচ মার্ক্স্ হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে যেমন তলপেট, স্তন, লোয়ার ব্যাক, নিতম্ব এবং ঊরু ইত্যাদি অংশে ব্যবহার করতে হবে। ব্যক্তিবিশেষে ফলাফলের তারতম্য হতে পারে।
ত্বকের বর্ণের অসামঞ্জস্যতা
ত্বকের বর্ণের অসামঞ্জস্যতা
ত্বকের বর্ণের অসামঞ্জস্যতা সৃষ্টি হয় যখন শরীরে মেলানিন তৈরিতে অসামঞ্জস্যতা দেখা দেয়। এটি বিভিন্ন বাহ্যিক কারণেও বৃদ্ধি পেতে পারে যেমন, অতিরিক্ত সূর্যালোকের সংস্পর্শে আসা বা নিম্নমানের ত্বক ফর্সাকারী পণ্যের ব্যাবহার; অথবা বিভিন্ন আভ্যন্তরীন কারণ যেমন গর্ভাবস্থায় হরমোনের ওঠানামা, মোনোপোজ বা গর্ভনিরোধক পিলের ব্যবহারের ফলেও হতে পারে। বায়ো-অয়েল ত্বকের অসামঞ্জস্যতা দূর করতে সাহায্য করে।
বায়ো-অয়েল আক্রান্ত স্থানে প্রতিদিন দু'বার, কমপক্ষে তিন মাস ব্যাবহার করতে হবে। বায়ো-অয়েলে কোনো সানস্ক্রিন উপাদান নেই। বায়ো-অয়েল ত্বক পুরোপুরি মিশে যাওয়ার পরে সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। ব্যক্তিবিশেষে ফলাফলের তারতম্য হতে পারে।
বলিরেখা
বলিরেখা
ত্বকের বলিরেখা যা সাধারণত বার্ধক্যজনিত কারণে হয়ে থাকে মূলত কোলাজেন ও ত্বকের স্থিতিস্থাপক প্রক্রিয়ার দুর্বল হয়ে যাওয়ার ফলাফল। বায়ো-অয়েলে আছে বিভিন্ন উপাদান যা ত্বকের নমনীয়তা ফিরিয়ে আনে, ত্বককে করে কোমল ও মসৃন,যার ফলে বলিরেখার উপস্থিতি কমে যায়। এছাড়াও বায়ো-অয়েল ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করে ত্বকের গঠন, বর্ণ উন্নত করে ও সূক্ষ রেখার উপস্থিতি কমিয়ে আনে।
বায়ো-অয়েল আক্রান্ত স্থানে প্রতিদিন দু'বার ব্যবহার করুন। ব্যক্তিবিশেষে ফলাফলের তারতম্য হতে পারে।
আর্দ্রতাশূন্য ত্বক
আর্দ্রতাশূন্য ত্বক
ত্বকের উপরিভাগে একটি অদৃশ্য তেলের স্তর থাকে যা ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করে। অতি শুষ্ক আবহাওয়ায় এই লিপিডস্তর ঠিক ভাবে কাজ করতে পারেনা ফলে ত্বকের ময়েশ্চার হারিয়ে যায়। প্রতিদিন গোসলে ক্ষারযুক্ত সাবান ও পানি ব্যাবহারের ফলে এই লিপিডস্তর দ্রুত ক্ষয়ে যায়। বায়ো-অয়েল ত্বকের হারানো লিপিড স্তরের সম্পূরক হিসেবে কাজ করে আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে।
বায়ো-অয়েল প্রতিদিন দু'বার ব্যবহার করুন। ব্যক্তিবিশেষে ফলাফলের তারতম্য হতে পারে।

ফর্মুলেশন
ফর্মুলেশন
ফর্মুলেশন
বায়ো-অয়েলে বিভিন্ন প্লান্ট এক্সট্র্যাক্ট ও ভিটামিন অয়েল-বেইজে দেয়া আছে। এতে আছে যুগান্তকারী উপাদান PurCellin Oil™, যার কারণে ফর্মুলেশনটির সামগ্রিক ঘনত্ব কম, হালকা, তৈলাক্ত নয় এবং ভিটামিন ও প্লান্ট এক্সট্রাক্টের গুনাগুন সহজেই শোষিত হয়।
ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট এন্ড কাউন্সিল ও কসমেটিক প্রোডাক্টসের পরীক্ষা অনুযায়ী বায়ো-অয়েল ব্যবহারের জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ। এর প্রতিটি উপাদানের বিষাক্ততা, রাসায়নিক গঠন, পরিমান ও দৈনিক ব্যবহারের সীমা পরীক্ষিত এবং ব্যবহারের জন্য নিরাপদ (গর্ভবতী মহিলাদের জন্যও নিরাপদ।)
উপাদান
উপাদান
বোটানিক্যালস
ক্যালেনডুলা অফিসিনালিস ফ্লাওয়ার এক্সট্র্যাক্ট (ক্যালেনডুলা অয়েল)
লাভেনডুলা অংগুস্টিফলিয়া অয়েল (ল্যাভেন্ডার অয়েল)
রোজমারিনাস অফিসিনালিস লিফ অয়েল (রোজমেরি অয়েল)
এন্থেমিস নোবিলিস ফ্লাওয়ার অয়েল (ক্যামোমিল অয়েল)
ভিটামিনস
রেটিনাইল পামিটেট (ভিটামিন এ)
টোকোফেরল এসিটেট (ভিটামিন ই)
অয়েল বেইজ
প্যারাফিনাম লিকুইডিয়াম
ট্রাইসনোনানোইন
সিটিয়ারাইল ইথাইলহেক্সানোয়েট
আইসোপ্রোপাইল মাইরিস্টেট
গ্লাইসিন সোজা অয়েল
হেলিএন্থাস আনুস সীড অয়েল
Tocopherol
বিসাবলল
ফ্রেগ্রেনস (রোজ)
পারফিউম
আলফা-আইসোমিথাইল আইয়োনোন
এমাইল সিনামাল
বেনজাইল স্যালিসাইলেট
সাইট্রোনেলল
কোমারিন
ইউজিনল
ফার্নেসল
জিরানিওল
হাইড্রোক্সিসিট্রনেলাল
লিমনেন
লিন্যালল
কালার
সি আই ২৬১০০
উৎপাদন
উৎপাদন
বায়ো-অয়েল উৎপাদন করা হয় ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানিজশনের নির্দেশনা অনুযায়ী সিজিএমপি (কারেন্ট গুড ম্যানুফ্যাক্চারিং প্র্যাক্টিস) মেনে। উৎপাদনের পূর্বে এর সকল উপাদানের বিশুদ্ধতা ও মাইক্রোবায়োলজিক্যাল কন্টামিনেশন টেস্ট করা হয় এবং প্রতিটি উৎপাদিত ব্যাচ থেকে স্যাম্পল নিয়ে তা ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করা হয় এবং ৫ বছর নিরীক্ষার জন্য সংরক্ষণ করা হয়।
বায়ো-অয়েলের প্রতিটি প্যাকেট রি-সাইকেলযোগ্য এবং সকল পেপার ম্যাটেরিয়াল সাস্টেইনেবল ফরেস্ট ম্যানেজমেন্ট প্র্যাক্টিসের আওতাভুক্ত।
বায়ো-অয়েল উৎপাদনেই সময় কোনো ধরণের ক্ষতিকর ধোঁয়া, বিপজ্জনক আবর্জনা ও তরল নির্গত হয়নি।

ক্লিনিকাল ট্রায়ালস
স্কার স্টাডি, ২০১০
স্কার স্টাডি, ২০১০
ট্রায়াল সেন্টার
প্রোডার্ম ইনস্টিটিউট ফর অ্যাপ্লায়েড ডার্মাটোলজিক্যাল রিসার্চ, হ্যামবুর্গ, জার্মানি।
উদ্দেশ্য
দাগের উপস্থিতি কমানোয় বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী হতে অংশগ্রহণকারী ৩৬ জন মহিলা। অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ১৮ থেকে ৬৫। দাগের বয়স: নতুন হতে ৩ বছর পুরোনো। দাগের অবস্থান: তলপেট, পা, হাত, গলা, হাঁটু, কাঁধ, শরীরের উপরিভাগ।
পদ্ধতি
ডাবল ব্লাইন্ড, রান্ডমাইজড এবং প্ল্যাসেবো নিয়ন্ত্রিত। অংশগ্রহণকারীদের একই রকম দাগ ছিল বা দাগটি যথেষ্ট বড়ো ছিল যার অর্ধেক অংশে প্রয়োগ করা যায় ও তুলনা করা যায় । পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ৮ সপ্তাহ ব্যাবহার করা হয়, টার্গেট এরিয়াতে কোনো অতিরিক্ত ম্যাসাজ করা হয়নি। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে এটি প্রয়োগ করা হয়। ০,২,৪ এবং ৮ সপ্তাহ অন্তর পরীক্ষাটি ফলাফল যাচাই করা হয়। পেশেন্ট এন্ড অবজার্ভার স্কার এসেসমেন্ট স্কেল (পিও এস এ এস) দ্বারা মূল্যায়িত।
ফলাফল
বায়ো-অয়েল দাগের প্রকটতা কমাতে কার্যকরী। পরিসংখ্যান অনুযায়ী মাত্র ২ সপ্তাহ (১৫ দিন) পরেই ৬৬% অংশগ্রহণকারীর উপর উল্লেখযোগ্য ফল পাওয়া যায়। ৮ সপ্তাহ (৫৭ দিন) পরে ৯২% অংশগ্রহণকারীর মধ্যে উন্নতি লক্ষ্য করা যায়, যার মধ্যে ২ সপ্তাহে তিনগুন পর্যন্ত উন্নতি লক্ষ্য করা যায়।
স্কার স্টাডি, ২০০৫
স্কার স্টাডি, ২০০৫
ট্রায়াল সেন্টার
ফটোবায়োলোজি ল্যাবরেটরি অফ দা মেডিকেল ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ আফ্রিকা।
উদ্দেশ্য
দাগের উপস্থিতি কমানোয় বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: ২৪জন অংশগ্রহণকারী, ২২জন মহিলা ও ২জন পুরুষ।অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ১৮ হতে ৬০। দাগের বয়স: নতুন হতে ৩ বছর পুরোনো। দাগের প্রকার: হালকা পুড়ে যাওয়া হতে সার্জিকাল দাগ (১২টি গুরুতর দাগ, ১৪টি হালকা দাগ - ১জন অংশগ্রহণকারীর ৩টি স্থানে দাগ ছিল।)
পদ্ধতি
সিঙ্গেল ব্লাইন্ড (নির্ধারক), রান্ডমাইজড এবং নিয়ন্ত্রিত। বিভিন্ন সাবজেক্টের তুলনার জন্য নির্ধারিত পেয়ার্ড স্টাডি। অংশগ্রহণকারীদের একই রকম দাগ ছিল বা দাগটি যথেষ্ট বড়ো ছিল যার অর্ধেক অংশে প্রয়োগ করা যায়। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ১২ সপ্তাহ টার্গেট এরিয়াতে ব্যাবহার করা হয়। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে এটি প্রয়োগ করা হয়। ০,২,৪ এবং ৮ সপ্তাহ অন্তর পরীক্ষাটি ফলাফল যাচাই করা হয়।
ফলাফল
অবজেক্টিভ ও সাবজেক্টিভ উভয় ক্ষেত্রেই বায়ো-অয়েল দাগের প্রকটতা কমাতে কার্যকরী। ৬৫% অংশগ্রহণকারীর মধ্যে মাত্র ৪ সপ্তাহেই উন্নতি লক্ষ্য করা যায়।
স্কার ইউজার ট্রায়াল, ২০০২
স্কার ইউজার ট্রায়াল, ২০০২
ট্রায়াল সেন্টার
এইটন-মুন, সমারসেট, ইউনাইটেড কিংডম।
উদ্দেশ্য
বায়ো-অয়েলের দাগের প্রকটতা কমানোর ক্ষমতা পরিমাপ করার জন্য ৮২ জনের মধ্যে পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: প্রাপ্তবয়স্ক ও শিশুসহ ৮২জন অংশগ্রহণকারী। দাগের বয়স: নতুন হতে ১০বছর পুরোনো। দাগের প্রকার: উন্নীত, সমান এবং অবনমিত দাগ, হালকা পুড়ে যাওয়া ও আঁচড় হতে সার্জিকাল দাগ। দাগের অবস্থান: বিভিন্ন।
পদ্ধতি
পণ্যটি প্রতিদিন ৩বার করে ৪ সপ্তাহ ব্যবহার করা হয়। অংশগ্রহণকারীদের এটি বৃত্তাকারভাবে ম্যাসেজ করে লাগাতে বলা হয় যতক্ষন না এটি পুরোপুরিভাবে ত্বকের সাথে মিশে যায়। ০, ২, এবং ৪ সপ্তাহ পর ইন্টারভিউ গ্রহণ করা হয়। ১-৯ এর স্কেলে অংশগ্রহণকারীরা তাদের উন্নতি লিপিবদ্ধ করে (১ মানে 'কোনো উন্নতি নেই' এবং ৯ মানে 'অনেক উন্নতি')
ফলাফল
৮২% অংশগ্রহণকারী মাত্র ৪ সপ্তাহে দাগের প্রকতটায় যথেষ্ট উন্নতি লিপিবদ্ধ করে।
একনি স্কার স্টাডি, ২০১২
একনি স্কার স্টাডি, ২০১২
ট্রায়াল সেন্টার
ডিপার্টমেন্ট অফ ডার্মাটোলজি, পিকিং ইউনিভার্সিটি ফার্স্ট হসপিটাল, বেইজিং, চায়না।
উদ্দেশ্য
চাইনিজ অংশগ্রহণকারীদের উপর বায়ো-অয়েলের মুখের ব্রণের দাগের উপর কার্যকারিতা পরীক্ষা করা হয়।
নমুনা
সাবজেক্ট: মুখে নতুন (<১ বছর) একনি স্কার সহ ৪৪জন চাইনিজ। বায়ো-অয়েল ট্রিটমেন্ট সেলে ছিল ৩২জন ও নো-ট্রিটমেন্ট সেলে ১২। অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ১৪ হতে ৩০।
পদ্ধতি
রান্ডমাইজড, নিয়ন্ত্রিত, এফিক্যাসি গ্রেডার - ব্লাইন্ডেড। অংশগ্রহণকারীরা প্রাথমিক পরীক্ষার পর ওয়াশ আউটের জন্য ১ সপ্তাহ অপেক্ষা করে। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ১০ সপ্তাহ ব্যবহার করা হয়। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে নিয়মিত এটি প্রয়োগ করা হয়। ০,৪,৮ এবং ১০ সপ্তাহ অন্তর পরীক্ষাটি ফলাফল যাচাই করা হয় যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ছিল: পরীক্ষক দ্বারা গ্লোবাল স্কারিং স্কোর (জিএসএস) এসেসমেন্ট, ক্রোমামিটার দ্বারা ব্রণের দাগের রং/ লালচে ভাব পরিমাপ, সেবুমমিটার দ্বারা সেবাম লেভেল পরিমাপ, ডার্মাটোলজিস্ট দ্বারা কমেডন ও প্রদাহজনিত ক্ষতর সংখ্যা লিপিবদ্ধ করা।
ফলাফল
বায়ো-অয়েলের এরিথেমা বা ম্যাকুলার (ফ্লাট) একনি স্কারের লালচেভাব কমানোর ক্ষমতা এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি এর ক্লিনিকাল গ্রেডিংয়ের সর্বোচ্চ ফলাফল। সেলফ-এসেসমেন্ট প্রশ্নমালা অনুযায়ী ৮৪% এর বেশি অংশগ্রহণকারী তাদের ব্রণের দাগের সার্বিক উন্নতি লক্ষ্য করে এবং ৯০% এর বেশি দাগের রঙে উন্নতি লক্ষ্য করে। একনি কাউন্ট ও সেবাম পরিমাপের ফলাফল অনুযায়ী বায়ো-অয়েল ব্রণ বা সেবাম সিক্রেশন বৃদ্ধি করে না।
স্ট্রেচ মার্ক্স্ স্টাডি, ২০১০
স্ট্রেচ মার্ক্স্ স্টাডি, ২০১০
ট্রায়াল সেন্টার
প্রোডার্ম ইনস্টিটিউট ফর অ্যাপ্লায়েড ডার্মাটোলজিক্যাল রিসার্চ, হ্যামবুর্গ, জার্মানি।
উদ্দেশ্য
বায়ো-অয়েলের স্ট্রেচ মার্কসের প্রকটতা কমানোর ক্ষমতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী হতে অংশগ্রহণকারী ৩৮জন মহিলা। অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ১৮ থেকে ৬৫। স্ট্রেচ মার্কসের কারণ: বিভিন্ন (গর্ভকালীন, অতিরিক্ত ওজন বৃদ্ধি অথবা বয়ঃসন্ধিকালীন বৃদ্ধি।) স্ট্রেচ মার্কসের অবস্থান: তলপেট, ঊরু, এবং নিতম্ব।
পদ্ধতি
ডাবল ব্লাইন্ড, রান্ডমাইজড এবং প্ল্যাসেবো নিয়ন্ত্রিত। অংশগ্রহণকারীদের একই রকম দাগ ছিল বা দাগটি যথেষ্ট বড়ো ছিল যার অর্ধেক অংশে প্রয়োগ করা যায় ও তুলনা করা যায় । পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ৮ সপ্তাহ ব্যবহার করা হয়, টার্গেট এরিয়াতে কোনো অতিরিক্ত ম্যাসাজ করা হয়নি। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে এটি প্রয়োগ করা হয়। ০,২,৪ এবং ৮ সপ্তাহ অন্তর পরীক্ষাটি ফলাফল যাচাইকরা হয়। পেশেন্ট এন্ড অবজার্ভার স্কার এসেসমেন্ট স্কেল (POSAS) দ্বারা মূল্যায়িত।
ফলাফল
বায়ো-অয়েল স্ট্রেচ মার্কসের প্রকটতা কমাতে কার্যকরী। পরিসংখ্যান অনুযায়ী মাত্র ২ সপ্তাহ (১৫ দিন) পরেই ৯৫% অংশগ্রহণকারীর উপর উল্লেখযোগ্য ফলাফল পাওয়া যায়। ৮ সপ্তাহ (৫৭ দিন) পরে ১০০% অংশগ্রহণকারীর মধ্যে উন্নতি লক্ষ্য করা যায়, যার হার ২ সপ্তাহ ব্যবহারকারীদের থেকে দ্বিগুনের বেশি। গবেষণার সময়ক POSAS- এর ক্রমাগত উন্নতি লক্ষ্য করা যায়।
স্ট্রেচ মার্ক্স্ স্টাডি, ২০০৫
স্ট্রেচ মার্ক্স্ স্টাডি, ২০০৫
ট্রায়াল সেন্টার
ফটোবায়োলোজি ল্যাবরেটরি অফ দা মেডিকেল ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ আফ্রিকা।
উদ্দেশ্য
বায়ো-অয়েলের স্ট্রেচ মার্কসের প্রকটতা কমানোর ক্ষমতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: ২০জন মহিলা অংশগ্রহনকারী। অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ১৮ থেকে ৫৫। স্ট্রেচ মার্কসের অবস্থান: তলপেট।
পদ্ধতি
সিঙ্গেল ব্লাইন্ড (নির্ধারক), রান্ডমাইজড এবং নিয়ন্ত্রিত। বিভিন্ন সাবজেক্টের তুলনার জন্য নির্ধারিত পেয়ার্ড স্টাডি। অংশগ্রহণকারীদের তলপেটে দ্বিপার্শ্বিক স্ট্রেচ মার্ক্স্ ছিল যার অর্ধেক অংশে প্রয়োগ করা যায়। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ১২ সপ্তাহ টার্গেট এরিয়াতে ব্যবহার করা হয়। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে এটি প্রয়োগ করা হয়। ০,৪,৮ এবং ১২ সপ্তাহ অন্তর পরীক্ষাটি ফলাফল যাচাই করা হয়।
ফলাফল
অবজেক্টিভ ও সাবজেক্টিভ উভয় ক্ষেত্রেই বায়ো-অয়েল স্ট্রেচ মার্কসের প্রকটতা কমাতে কার্যকরী। ৫০% অংশগ্রহণকারীর মধ্যে মাত্র ৮ সপ্তাহেই উন্নতি লক্ষ্য করা যায়।
আনইভেন স্কিনটোন স্টাডি, ২০১১
আনইভেন স্কিনটোন স্টাডি, ২০১১
ট্রায়াল সেন্টার
টমাস জে. স্টিফেন্স এন্ড এসোসিয়েটস, আইএনসি, টেক্সাস, ইউনাইটেড স্টেটস অফ আমেরিকা।
উদ্দেশ্য
মহিলাদের মুখ ও গলার ফটোড্যামেজড (বার্ধক্যজনিত) ত্বকের হালকা থেকে মধ্যম বর্ণের অসামঞ্জস্যতা ও ছোপছোপ দাগের প্রকটতা কমানোর ক্ষেত্রে বায়ো-অয়েলের ক্ষমতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী হতে অংশগ্রহণকারী ৬৭জন মহিলা যাদের মুখে ও গলায় ডাক্তারি ভাবে পরীক্ষিত হালকা থেকে মধ্যম ফটোডেমেজ আছে। বায়ো-অয়েল ট্রিটমেন্ট সেলে আছে ৩৫জন ও নো-ট্রিটমেন্ট সেলে আছে ৩২জন। অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ৩০ থেকে ৭০।
পদ্ধতি
রান্ডমাইজড, নিয়ন্ত্রিত, এফিক্যাসি গ্রেডার - ব্লাইন্ডেড। অংশগ্রহণকারীরা প্রাথমিক পরীক্ষার পর ওয়াশ আউটের জন্য ১ সপ্তাহ অপেক্ষা করে। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত মুখে ও গলায় ব্যবহার করা হয়। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে নিয়মিত এটি প্রয়োগ করা হয়। ক্লিনিকাল পরীক্ষাটির ০, ২, ৪, ৮ এবং ১২ সপ্তাহ অন্তর ফলাফল যাচাই করা হয়। অংশগ্রহণকারীদের মুখ ও গলার ত্বকের বর্ণের অসামঞ্জস্যতা ও ছোপছোপ দাগ অনুযায়ী ক্লিনিকাল গ্রেডে আলাদা করা হয়।
ফলাফল
মুখ ও গলার ফটোড্যামেজড (বার্ধক্যজনিত) ত্বকের হালকা থেকে মধ্যম বর্ণের অসামঞ্জস্যতা ও ছোপছোপ দাগের প্রকটতা কমানোর ক্ষেত্রে বায়ো-অয়েল কার্যকরী। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ৪ সপ্তাহ (১৫ দিন) পরেই মুখ ও গলার দাগের দু'ধরণের পরিমাপকের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ফলাফল পাওয়া যায়। ১২ সপ্তাহ পরে ৮৬% বায়ো-অয়েল ট্রিটমেন্ট সেলে অংশগ্রহণকারীর মধ্যে মুখের বর্ণের অসামঞ্জস্যতা, ৭১% অংশগ্রহণকারীর মুখের ছোপছোপ দাগ, ৬৯% অংশগ্রহণকারীর গলার বর্ণের অসামঞ্জস্যতা ও ৬০% অংশগ্রহণকারীর গলার ছোপছোপ দাগে লক্ষ্যনীয় উন্নতি দেখা যায়।
আনইভেন স্কিনটোন স্টাডি, ২০০৫
আনইভেন স্কিনটোন স্টাডি, ২০০৫
ট্রায়াল সেন্টার
ফটোবায়োলোজি ল্যাবরেটরি অফ দা মেডিকেল ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ আফ্রিকা।
উদ্দেশ্য
ত্বকের বর্ণের অসামঞ্জস্যতা কমানোর ক্ষেত্রে বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী হতে অংশগ্রহণকারী ৩০জন মহিলা।অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ১৮ থেকে ৫৫। দাগের ধরণ: ফেসিয়াল মেলাসমা।
পদ্ধতি
সিঙ্গেল ব্লাইন্ড (নির্ধারক), রান্ডমাইজড এবং নিয়ন্ত্রিত। বিভিন্ন সাবজেক্টের তুলনার জন্য নির্ধারিত পেয়ার্ড স্টাডি। অংশগ্রহণকারীদের মুখ/গলায় দ্বিপার্শ্বিক ছোপছোপ দাগ ছিল যার অর্ধেক অংশে প্রয়োগ করা যায়। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ১২ সপ্তাহ টার্গেট এরিয়াতে ব্যবহার করা হয়। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে এটি প্রয়োগ করা হয়। ০,৪,৮ এবং ১২ সপ্তাহ অন্তর পরীক্ষাটি ফলাফল যাচাই করা হয়।
ফলাফল
উজ্জ্বল ও শ্যামলা উভয় বর্ণের ত্বকের ক্ষেত্রে বর্ণের অসামঞ্জস্যতা কমানোয় বায়ো-অয়েলের কার্যকার। ৬ সপ্তাহে ৯৩% অংশগ্রহণকারীর উন্নতি লিপিবদ্ধ করা হয়। ক্লিনিসিয়ান দ্বারা ০ থেকে ৮ সপ্তাহে উজ্জ্বল ও শ্যামলা বর্ণের ত্বকের ক্ষেত্রে একই রকম উন্নতি লিপিবদ্ধ করা হয়। ক্লিনিসিয়ান দ্বারা ৮ থেকে ১২ সপ্তাহে শ্যামলা বর্ণের ত্বকের ক্ষেত্রে আরো বেশি উন্নতি লিপিবদ্ধ করা হয়।
এজিং স্কিন স্টাডি, ২০১১
এজিং স্কিন স্টাডি, ২০১১
ট্রায়াল সেন্টার
টমাস জে. স্টিফেন্স এন্ড এসোসিয়েটস, আইএনসি, টেক্সাস, ইউনাইটেড স্টেটস অফ আমেরিকা।
স্টাডি ১: মুখ ও গলা
উদ্দেশ্য
মহিলাদের মুখ ও গলার মধ্যম ফটোড্যামেজড (বার্ধক্যজনিত) ত্বকে প্রকটতা কমানোর ক্ষেত্রে বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী হতে অংশগ্রহণকারী ৬৭জন মহিলা যাদের মুখে ও গলায় ডাক্তারি ভাবে পরীক্ষিত হালকা থেকে মধ্যম ফটোডেমেজ আছে। বায়ো-অয়েল ট্রিটমেন্ট সেলে আছে ৩৫জন ও নো-ট্রিটমেন্ট সেলে আছে ৩২জন। অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ৩০ থেকে ৭০।
পদ্ধতি
রান্ডমাইজড, নিয়ন্ত্রিত, এফিক্যাসি গ্রেডার - ব্লাইন্ডেড। অংশগ্রহণকারীরা প্রাথমিক পরীক্ষার পর ওয়াশ আউটের জন্য ১ সপ্তাহ অপেক্ষা করে। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত মুখে ও গলায় ব্যবহার করা হয়। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে নিয়মিত এটি প্রয়োগ করা হয়। ক্লিনিকাল পরীক্ষাটির ০, ২, ৪, ৮ এবং ১২ সপ্তাহ অন্তর ফলাফল যাচাই করা হয়। অংশগ্রহণকারীদের মুখ ও গলার ত্বকের দাগ নিম্নোক্ত ভাবে ক্লিনিকাল গ্রেডে আলাদা করা হয়: সামগ্রিক উপস্থিতি, সুক্ষ রেখা, অমসৃণ বলিরেখা, ছোপছোপ দাগ, বর্ণের অসামঞ্জস্যতা, অমসৃণ ত্বক, রুক্ষ ত্বক, দৃঢ়ভাব ও নিষ্প্রাণ ভাব।
ফলাফল
মুখ ও গলার ফটোড্যামেজড (বার্ধক্যজনিত) ত্বকে প্রকটতা কমানোর ক্ষেত্রে বায়ো-অয়েলের কার্যকরী। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ৪ সপ্তাহ পরেই ক্লিনিকাল গ্রেডের সকল পরিমাপকের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ফল পাওয়া যায়। ১২ সপ্তাহ পরে ৯৪% বায়ো-অয়েল ট্রিটমেন্ট সেলে অংশগ্রহণকারীর মধ্যে সার্বিক চেহারায় উল্লেখযোগ্য উন্নতি দেখা যায় ও ৮০% অংশগ্রহণকারীর সার্বিক গলার বর্ণে লক্ষ্যনীয় উন্নতি দেখা যায়।
স্টাডি ২: শরীর
উদ্দেশ্য
ডিকোলেটেজ, মহিলাদের পায়ের নিম্নাংশ ও বাহুর ত্বকের হালকা থেকে মধ্যম ফটোড্যামেজড (বার্ধক্যজনিত) ত্বকে প্রকটতা কমানোর ক্ষেত্রে বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী হতে অংশগ্রহণকারী ৬৭জন মহিলা যাদের মুখে ও গলায় ডাক্তারি ভাবে পরীক্ষিত হালকা থেকে মধ্যম ফটোডেমেজ আছে। বায়ো-অয়েল ট্রিটমেন্ট সেলে আছে ৩৫জন ও নো-ট্রিটমেন্ট সেলে আছে ৩২জন। অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ৩০ থেকে ৭০।
পদ্ধতি
রান্ডমাইজড, নিয়ন্ত্রিত, এফিক্যাসি গ্রেডার - ব্লাইন্ডেড। অংশগ্রহণকারীরা প্রাথমিক পরীক্ষার পর ওয়াশ আউটের জন্য ১ সপ্তাহ অপেক্ষা করে। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত ডিকোলাজেন, পায়ের নিম্নাংশ ও বাহুতে ব্যবহার করা হয়। সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে মাধ্যমে নিয়মিত এটি প্রয়োগ করা হয়। ক্লিনিকাল পরীক্ষাটির ০, ২, ৪, ৮ এবং ১২ সপ্তাহ অন্তর ফলাফল যাচাই করা হয়। অংশগ্রহণকারীদের ডিকোলাজেন, পায়ের নিম্নাংশ বাহুর দাগ অনুযায়ী নিম্নোক্ত ভাবে ক্লিনিকাল গ্রেডে আলাদা করা হয়: সামগ্রিক উপস্থিতি, অমসৃণতা, শুষ্কতা/চামড়া ওঠা, দৃশ্যমান রুক্ষতা স্পর্শগত রুক্ষতা।
ফলাফল
শরীরের সার্বিক ফটোড্যামেজড (বার্ধক্যজনিত) ত্বকে প্রকটতা কমানোর ক্ষেত্রে বায়ো-অয়েলের কার্যকরী। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ৪ সপ্তাহ পরেই ক্লিনিকাল গ্রেডের সকল পরিমাপকের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ফল পাওয়া যায়। ১২ সপ্তাহ পরে ৮৯% অংশগ্রহণকারীর মধ্যে সার্বিকভাবে ডিকোলাজেন, পায়ের নিম্নাংশ ও বাহুতে উল্লেখযোগ্য উন্নতি দেখা যায়।
ডিহাইড্র্যাটেড স্কিন, ২০১১
ডিহাইড্র্যাটেড স্কিন, ২০১১
ট্রায়াল সেন্টার
ফটোবায়োলোজি ল্যাবরেটরি অফ দা মেডিকেল ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ আফ্রিকা।
স্টাডি ১
উদ্দেশ্য
ত্বকের কর্নিয়াম স্তর সুরক্ষা ও আর্দ্রতা রক্ষায় বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী হতে অংশগ্রহণকারী ৪০জন মহিলা। টেস্ট সাইট: অংশগ্রহণকারীদের ভোলার ফোরআর্মে টেস্ট প্রোডাক্ট প্রয়োগ করা হয়।
পদ্ধতি
ত্বকের আর্দ্রতা পরীক্ষার ক্ষেত্রে প্রাথমিক ভাবে ক্রোনোমিটার এবং ত্বক সুরক্ষার ক্ষেত্রে আনুষাঙ্গিকভাবে ভ্যাপোমিটার ব্যবহার করা হয়। প্যানেলে অংশগ্রহণকারীরা পরীক্ষাটি করার ২ ঘন্টা পূর্বে সাবান দিয়ে হাত ধোয়। বেইজলাইন উপকরণের পরিমাপ নেয়া হয়। অংশগ্রহণকারীদের ভোলার ফোরআর্মের একটিতে বায়ো-অয়েল ও অপরটিতে অন্য একটি তেল লাগানো হয়। লাগানোর সাথে সাথে, ২ ঘন্টা পর, মুছে ফেলার আগে ও পরে নিরীক্ষা করা হয়। প্রতিটি ক্ষেত্রেই ত্বকের একটি নিয়ন্ত্রিত অংশ যাতে কোনোকিছু লাগানো হয়নি সেটিও নিরীক্ষা করা হয়।
ফলাফল
দু'টি তেলের ক্ষেত্রেই লাগানোর সাথে সাথে ত্বকের যা অংশে কোনোকিছু লাগানো হয়নি তার তুলনায় কম ট্রান্সএপিডার্মাল ওয়াটার লস (TEWL) লক্ষ্য করা যায়। উভয় তেলের ক্ষেত্রেই মুছে ফেলার ২ ঘন্টা আগে ত্বকের আর্দ্রতা বাড়তে দেখা যায়। দুই ঘন্টা পর, দু'হাতের তেল মুছে ফেলার পর দেখা যায় অন্য তেল ব্যাবহার করা হাতের তুলনায় বায়ো-অয়েল ব্যাবহৃত হাতে TEWL কম হয় এবং ময়েশ্চার বৃদ্ধি করে ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখে।
স্টাডি ২
উদ্দেশ্য
প্রতিদিন দু'বার ব্যাবহারে ময়েশ্চারাইজেশন ও শুষ্ক ত্বকের সুরক্ষায় বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: ২৫জন ককেশিয়ান মহিলা অংশগ্রহণকারী। টেস্ট সাইট: অংশগ্রহণকারীদের পায়ের বহির, নিম্নাংশে টেস্ট প্রোডাক্ট প্রয়োগ করা হয়।
পদ্ধতি
ত্বক শুষ্ক হবার জন্য অংশগ্রহণকারীরা ৭দিন সাবান ব্যাবহার করে। বায়ো-অয়েল এবং অন্য একটি তেল প্রতিদিন দু'বার লাগানো হয়। ১ম ও ২য় দিন ত্বক পরীক্ষা করা হয়। একজন প্রশিক্ষিত পরীক্ষাকারী ২X ম্যাগনিফায়িং ল্যাম্প দিয়ে ত্বকের বাহ্যিক পরিবর্তন লক্ষ্য করে। ত্বকের একটি অংশ যাতে কোনোকিছু লাগানো হয়নি সেটিও পরীক্ষা করা হয়।
ফলাফল
দু'টি তেলের ক্ষেত্রেই ত্বকের যা অংশে কোনোকিছু লাগানো হয়নি তার তুলনায় ত্বকের শুষ্কতা কমে যাওয়া লক্ষ্য করা যায়। ৩য় দিন বায়ো-অয়েল সর্বোচ্চ ফলাফল দেয়। টেস্ট সাইট থেকে দেখা যায় ত্বককে শুষ্কতার হাত থেকে রক্ষায় বায়ো-অয়েল লক্ষ্যণীয় ভাবে কাজ করে।
একনিজেনিক টেস্ট, ২০০৬
একনিজেনিক টেস্ট, ২০০৬
ট্রায়াল সেন্টার
ফিউচার কসমেটিক, প্রিটোরিয়া, সাউথ আফ্রিকা।
উদ্দেশ্য
কোমেডন ও একনি হবার প্রবণতায় বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: ২১জন অংশগ্রহণকারী, বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী হতে ১৭জন মহিলা এবং ৪জন পুরুষ, যাদের ৫০% এর একনি হবার প্রবণতা আছে।
পদ্ধতি
রান্ডমাইজড ও নিয়ন্ত্রিত। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ২৮ দিন পর্যন্ত ব্যবহার করা হয়। ৩ ধরণের ত্বক পরীক্ষা করা হয়: ত্বকের যে অংশে কোনো কিচ্ছু ব্যবহার করা হয়নি (নেগেটিভ কন্ট্রোল), ত্বকের যে অংশে বায়ো-অয়েল ব্যবহার করা হয়, এবং ত্বকের যে অংশে এসিটাইলেটেড লিনোলিন এলকোহল ব্যবহার করা হয় (পজিটিভ কন্ট্রোল - একটি পরিচিত একনিজেনিক প্রোডাক্ট।) উপাদানগুলো পিঠের উপরের অংশে (স্ক্যাপুলার) প্রয়োগ করা হয়।
ফলাফল
ফলাফলে দেখা যায় বায়ো-অয়েল নন-একনিজেনিক ও নন-কমেডোজেনিক। তুলনা করে দেখা যায় যে অংশে প্রয়োগ করা হয়নি তার সাথে যে অংশে বায়ো-অয়েল প্রয়োগ করা হয় সেখানে কোনো লক্ষ্যনীয় পরিবর্তন নেই। পজিটিভ কন্ট্রোল অংশে একনি দেখা যায়।
সেনসিটিভ স্কিন টেস্ট, ২০০৬
সেনসিটিভ স্কিন টেস্ট, ২০০৬
ট্রায়াল সেন্টার
ফিউচার কসমেটিক, প্রিটোরিয়া, সাউথ আফ্রিকা।
উদ্দেশ্য
সংবেদনশীল ত্বকে ব্যাবহারে জ্বালাপোড়া হবার প্রবণতায় বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: ২১জন অংশগ্রহণকারী। অংশগ্রহণকারীদের বয়স: ১৮ থেকে ৬৫। নির্বাচন প্রক্রিয়া: সংবেদনশীল ত্বকের অধিকারী যাদের সংবেদনশীলতার মাত্রা পজিটিভ কন্ট্রোল (ল্যাক্টিক অ্যাসিড) দ্বারা নিশ্চিত করা হয়।
পদ্ধতি
রান্ডমাইজড ও নিয়ন্ত্রিত। পণ্যটি প্রতিদিন দু'বার ২৮ দিন পর্যন্ত ব্যবহার করা হয়। ৩ ধরণের ত্বক পরীক্ষা করা হয়: ত্বকের যে অংশে ডিআয়োনাইজড ওয়াটার ব্যবহার করা হয় (নেগেটিভ কন্ট্রোল), ত্বকের যে অংশে বায়ো-অয়েল ব্যবহার করা হয়, এবং ত্বকের যে অংশে ১% সোডিয়াম লোরেল সালফেট সল্যুশন ব্যবহার করা হয় (পজিটিভ কন্ট্রোল - একটি পরিচিত জ্বালাপোড়াকারী উপাদান।) একটুকরো প্রলেপের মাধমে উপাদানগুলো ভোলার ফোরআর্মে লাগানো হয় ও ২৪ ঘন্টা পরে তুলে ফেলা হয়। লাগানোর ২৪, ৪৮, ৭২ ও ৯৬ ঘন্টা পরে ত্বকের প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা হয়। ত্বকের প্রতিক্রিয়া ০-৪ স্কেলে পরিমাপ করে হয়। ( এখানে ০ কোনো প্রতিক্রিয়া নেই ও ৪ খুবই লালচেভাব।)
ফলাফল
পরীক্ষায় দেখা যায় সংবেদনশীল ত্বকের জন্য বায়ো-অয়েল একটি নন-ইররিট্যান্ট প্রোডাক্ট। বায়ো-অয়েল ব্যবহারে কোনো অংশগ্রহণকারীর মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। ৯৬ ঘন্টায় বায়ো-অয়েলের বিরূপ প্রতিক্রিয়ার হার ০.০৩। ডাইওনাইজইড ওয়াটারের তুলনায় বায়ো-অয়েলের ফলাফল ভালো।
এবসর্প্শন স্টাডি, ২০১১
এবসর্প্শন স্টাডি, ২০১১
ট্রায়াল সেন্টার
প্রোডার্ম ইনস্টিটিউট ফর অ্যাপ্লায়েড ডার্মাটোলজিক্যাল রিসার্চ, হ্যামবুর্গ, জার্মানি।
স্টাডি ১
উদ্দেশ্য
সাধারণভাবে প্রয়োগে বায়ো-অয়েলের শোষণ করার কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: ২১জন প্রশিক্ষিত অংশগ্রহণকারী (২১জন মহিলা ও ১জন পুরুষ।) টেস্ট সাইট: সকল অংশগ্রহণকারীর ভোলার ফোরআর্মে টেস্ট প্রোডাক্ট প্রয়োগ করা হয়।
পদ্ধতি
ডাবল ব্লাইন্ড, রান্ডমাইজড এবং নিয়ন্ত্রিত। অংশগ্রহণকারীদের ভোলার ফোরআর্মে প্রয়োগ করার জন্য বায়ো-অয়েল ও অন্য একটি তেল দেয়া হয়। অংশগ্রহণকারীরা একটি নির্দিষ্ট গতিতে ১০০টি সাইক্লিক মুভমেন্টে পণ্যটি ব্যাবহার করে। ব্যাবহারকারীরা এর শোষণ ক্ষমতাকে ৫এর স্কেলে পরিমাপ করে যেখানে 'খুবই ধীরে শোষণ হয়' থেকে 'খুবই দ্রুত শোষণ হয়' দেয়া আছে। লাগানোর আজ্ঞে ও লাগানোর ২ মিনিট পরে সেবোমিটার দিয়ে ত্বকের ওপরের তেলের পরিমান মাপা হয়।
ফলাফল
প্রশিক্ষিত ব্যবহারকারীদের বেশিরভাগ (৭৭.৩%) বলে বায়ো-অয়েল ত্বকে 'খুব দ্রুত' থেকে 'দ্রুত' তোকে মিশে যায়। এটি দ্বিতীয়বার ব্যবহারের পর তোকে যে পরিমান বায়ো-অয়েল রয়ে যায় তার উপর সেবুমিটার ব্যাবহার করে রিডিং নিয়ে নিশ্চিত করা হয়।
স্টাডি ২
উদ্দেশ্য
সাধারণভাবে প্রয়োগে বায়ো-অয়েলের শোষণ করার কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা।
নমুনা
সাবজেক্ট: ১০০জন অংশগ্রহণকারী (৯৭জন মহিলা ও ৩জন পুরুষ।) টেস্ট সাইট: সকল অংশগ্রহণকারীর ভোলার ফোরআর্মে টেস্ট প্রোডাক্ট প্রয়োগ করা হয়।
পদ্ধতি
ডাবল ব্লাইন্ড, রান্ডমাইজড এবং নিয়ন্ত্রিত। অংশগ্রহণকারীদের ভোলার ফোরআর্মে প্রয়োগ করার জন্য বায়ো-অয়েল ও অন্য একটি তেল দেয়া হয়। অংশগ্রহণকারীরা প্রত্যেকে ১ মিনিট ধরে পণ্যটি ব্যবহার করে। ব্যবহারকারীরা এর শোষণ ক্ষমতাকে ৫এর স্কেলে পরিমাপ করে যেখানে 'খুবই ধীরে শোষণ হয়' থেকে 'খুবই দ্রুত শোষণ হয়' দেয়া আছে।
ফলাফল
বেশিরভাগ (৭২%) অংশগ্রহণকারী দ্বারা মূল্যায়ন করা হয় বায়ো-অয়েল ত্বকে 'অতি দ্রুত' বা 'দ্রুত' মিশে যায়।
ওকলুসিভিটি স্টাডি, ২০০৮
ওকলুসিভিটি স্টাডি, ২০০৮
ট্রায়াল সেন্টার
ট্রায়ালটি পরিচালিত হয় প্রফেসর ডাঃ জে উইশার দ্বারা রিগানো ল্যাবরেটরিতে যা মিলান, ইতালিতে অবস্থিত।
উদ্দেশ্য
ভারনিক্স ক্যাসিয়সায় আবরণকারী হিসাবে বায়ো-অয়েলের কার্যকারিতা পরিমাপ করার পরীক্ষা। (ভারনিক্স ক্যাসিয়সা একটি দুধ-সাদা এবং ভিসকোস বিয়োফিল্ম ধরণের আবরণ যা গর্ভাবস্থায় শিশুকে রক্ষা করে। কসমেটিক সায়েন্টিস্টদের কাছে এর আদর্শ আবরণী কার্যকারিতার জন্য ত্বকের ময়েশ্চারাইজেশনে 'গোল্ড স্ট্যান্ডার্ড' হিসেবে পরিচিত।
পদ্ধতি
ভিট্রো-স্কিন নামক সেমি-পারমিয়েবল মেমব্রেন দ্বারা আবরণ করা বিকারে পরিমান মতো পানি নেয়া হয়, যা মানুষের ত্বকের উপরিভাগের অনুরূপ। ভারনিক্স ক্যাসিয়সা ও বায়ো-অয়েল মেমব্রেনটিতে প্রয়োগ করা হয় এবং একইসাথে বিকার থেকে কি পরিমান পানি কমে যাচ্ছে তাও পরিমাপ করা হয়। এটি মেমব্রেনে কোনো কিছু ব্যাবহার না করলে কি পরিমান পানি কমে যায় সেটিও পরিমাপ করা হয়। প্রতিটি পণ্যের ক্ষেত্রে পানি বাষ্প হবার পরিমান হিসাব করা হয় এবং g/m2/h দ্বারা প্রকাশ করা হয়।
ফলাফল
বায়ো-অয়েল ভারনিক্স ক্যাসিয়সার খুব কাছাকাছি আবরণকারী হিসাবে কার্যকারিতা প্রকাশ করে। বায়ো-অয়েলের ক্ষেত্রে এটি রেজিস্টার হয় ২৩.৫ ও ভারনিক্স ক্যাসিয়সার ক্ষেত্রে ২৭.২।

প্রশংসা
পুরস্কার সর্বাধিক পরামর্শকৃত
ডাক্তার/ ফার্মাসিস্ট/ ধাত্রীদের দ্বারা দাগ ও স্ট্রেচ মার্কসের জন্য পরামর্শকৃত পণ্য
Australia, ডাক্তার জরিপ (ACA Research HCP Study Jan 2019, 2019)
Australia, ফার্মাসিস্ট জরিপ (ACA Research HCP Study Jan 2019, 2019)
Canada, ডাক্তার জরিপ (EnsembleIQ Healthcare Group and RK Insights, 2019)
Canada, ফার্মাসিস্ট জরিপ (EnsembleIQ Healthcare Group and RK Insights, 2019)
Germany, ফার্মাসিস্ট জরিপ (BVDA / German Pharmacist Association, 2015)
Ireland, ফার্মাসিস্ট জরিপ (3 Gem, 2015)
Italy, মিডওয়াইফ জরিপ (Millward Brown, 2014)
Kenya, ফার্মাসিস্ট জরিপ (Consumer Insight, 2015)
New Zealand, ডাক্তার জরিপ (Colmar Brunton, 2018)
South Africa, ডাক্তার জরিপ (IPSOS, 2018)
South Africa, স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ জরিপ (IPSOS, 2018)
South Africa, মিডওয়াইফ জরিপ (IPSOS, 2018)
South Africa, ফার্মাসিস্ট জরিপ (IPSOS, 2018)
United Kingdom, ফার্মাসিস্ট জরিপ (3 Gem, 2018)
Zimbabwe, ডাক্তার জরিপ (Marketers Association of Zimbabwe, 2016)
Zimbabwe, মিডওয়াইফ জরিপ (Marketers Association of Zimbabwe, 2016)
Zimbabwe, ফার্মাসিস্ট জরিপ (Marketers Association of Zimbabwe, 2016)
১ নম্বর বিক্রিত
১ নম্বর বিক্রিত দাগ ও স্ট্রেচ মার্ক পণ্য
Australia (Aztec Segment and item list as defined by Aspen Pharmacare, based on AU Grocery & Pharmacy Scan combined data within Hand & Body Skin Care Database. September, 2017)
Belgium (IMS data Q2 2019 (value))
Botswana (Medswana (Pty) Ltd, 2016)
Canada (Nielsen MarketTrack. Specialty Creams, Lotions and Scar Treatments. National Grocery, Drug + Mass, 52 weeks ending Feb 3, 2018)
Finland (Pharmacy data and GFT retail data, value sales, 2016)
Germany (Nielsen IMS Health)
Hungary (IMS Health Pharmacy Survey Q1, 2016)
Ireland (IMS Firming & Anti-Stretch Mark Total value 52 week period July 18)
Italy (IMS Dataview Multichannel, Pharmacy + Parapharmacy + Corner Gdo, Reconstructed Class Anti-stretch marks (82F2A) + Scars (46A3), sell-out volume, rolling year ending in September 2018. )
Kenya (Consumer Insight, 2015)
Liechtenstein (IMS Health GmbH - Pharma Trend, Units & Sales Value, Sept 2017)
Malaysia (Nielsen, Scar & Stretch Mark, PM Drugstore/Pharmacy, January - June 2017)
Namibia (Geka Pharma (Pty) Ltd 2016 and Nampharm 2016)
Netherlands (IRI, YTD 52 2016)
New Zealand (IRI, National Combined MAT, October 2015)
Poland (IQVIA Poland Pharmascope 04/2019, 82F2 FIRMING&A-STRETCH PRODS, Value(PLN), MAT 04/2019 © 2019 IQVIA and its affiliates. All rights reserved.)
Portugal (39,4% Nº1 in Strech Market - Pharmacy only IQVIA Portugal July 2019)
Singapore (Nielsen, Scar & Stretch Mark, PM Drugstore/Pharmacy, 2016)
South Africa (Nielsen, Total Value ranking 52 week period ending 31 Jan 2018)
Swaziland (Swazi Pharm Wholesalers (Pty) Ltd, 2016)
Sweden (Nielsen Scanningdata, HPC, Other Skincare, Scars/Stretchmarks, MAT W52, 2018)
Switzerland (IMS Health GmbH - Pharma Trend, Units & Sales Value, Sept 2017)
Ukraine (PharmStandard)
United Kingdom (IRI Value Sales, Skincare Treatments category, Total UK, 52 weeks ending 1 Dec 2018)
Zimbabwe (Marketers Association of Zimbabwe, May 2016)

প্রাপ্যতা
বাংলাদেশ
প্রস্তাবিত খুচরা মূল্য
BDT 700.00 (৬০ মি:লি:)

পাওয়া যাচ্ছে
Leading Drug Stores/Pharmacies, Cosmetics and Departmental Stores nationwide.